ডিজিটাল বাংলাদেশ করে দিয়েছি: হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আজকে ডিজিটাল বাংলাদেশ করে দিয়েছে। দেশের সকলের হাতে আজ মোবাইল ফোন। এর মাধ্যমে মানুষ চেয়ারা দেখে কথা বলতে পারে। এটাই তো ডিজিটাল।

আজ বুধবার বিকেলে পটিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের জনসভা মঞ্চে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে বেলা ৩টার দিকে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনসভাস্থলে পৌঁছান।

এসময় তিনি ৪১ প্রকল্পের উদ্বোধন ও মোনাজাত শেষে মঞ্চ ওঠেন। হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান। চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ এই জনসভার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ জনসভায় সভাপতিত্ব করছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঞ্চে পৌঁছানোর আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়েছে উঠে জনসভাস্থল পটিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ। দুপুরের পর থেকে জনসভাস্থল ছাপিয়ে আশপাশের সড়ক ও অলিগলিতে অবস্থান নিয়েছে সাধারণ জনগণ। পুলিশের তিন হাজার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন। ১৭ বছর পর পটিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আসলেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পটিয়ায় এটি তার প্রথম সফর।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে সাজ সাজ রব বন্দর জেলার এই উপজেলায়। মোড়ে মোড়ে ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। পাশাপাশি বড় বড় বিলবোর্ড আর তোরণে শোভা পাচ্ছে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র।প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগ দিতে সকাল থেকে মিছিল নিয়ে আসতে শুরু করেন নেতাকর্মীরা।

প্রায় ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে পটিয়ার ইতিহাসের সবচেয়ে বড় ও ব্যয়বহুল ৮০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩২ ফুট প্রস্থের নৌকা আকৃতির মঞ্চ নির্মাণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর জনসমাবেশে ৩টি প্রবেশপথ রাখা হয়েছে। জনসভার প্রস্তুতি হিসেবে দিনব্যাপী মাইকিং করা হয়েছে.

প্রধানমন্ত্রীর আগমনের উৎসবে পিছিয়ে নেই আগামী সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরাও। সড়কের মোড়ে মড়ো এমপি হিসেবে দেখতে চাই লেখা তোরণ ও বিলবোর্ডও চোখে পড়ার মতো।

এদিকে, বুধবার বেলা ১১টায় বাংলাদেশ নেভাল একাডেমির (বিএনএ) অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে তিনি বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্স উদ্বোধন করেন।

আজকেরবাজার/এস/এইচজে