বিশ্বে একদিনে সাড়ে ১৩ হাজারের বেশি মৃত্যু

MOSCOW, RUSSIA - NOVEMBER 23, 2020: Medical workers wear protective suits at a temporary medical facility set up at the Krylatskoye Ice Palace to treat COVID-19. Converted to a hospital in spring 2020, a 23,400 sq m sports facility has 1,389 beds in place, including 42 in the intensive care unit. Sergei Bobylev/TASS Ðîññèÿ. Ìîñêâà. Ìåäèöèíñêèå ðàáîòíèêè â çàùèòíûõ êîñòþìàõ âî âðåìåííîì ãîñïèòàëå äëÿ ïàöèåíòîâ ñ COVID-19 â ëåäîâîì äâîðöå "Êðûëàòñêîå", êîòîðûé ïåðåïðîôèëèðîâàëè â êîðîíàâèðóñíûé ñòàöèîíàð â àïðåëå - ìàå 2020 ãîäà. Íà ïëîùàäè 23,4 òûñÿ÷è êâàäðàòíûõ ìåòðîâ ðàçìåñòèëè 1347 èíôåêöèîííûõ êîåê è 42 êîéêè èíòåíñèâíîé òåðàïèè. Ñåðãåé Áîáûëåâ/ÒÀÑÑ

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে একদিনে সাড়ে ১৩ হাজারের বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। সেই সাথে একই সময়ে রোগী শনাক্ত হয়েছেন প্রায় সাড়ে চার লাখ।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় (জেএইচইউ) থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ২৩ লাখ ৫৩ হাজার ৭৮২ জনে। আগের দিন এ সংখ্যাটি ছিল ২৩ লাখ ৪০ হাজার ৮৭ জন।

এছাড়া, ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ কোটি ৭৩ লাখ ২৩ হাজার ৮৫ জনে। গতকাল তা ছিল ১০ কোটি ৬৮ লাখ ৮৪ হাজার ৪৯৮ জন।

চীনের উহানে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। গত ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে মহামারি ঘোষণা করে। এর আগে ২০ জানুয়ারি জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ পর্যন্ত দেশটিতে ২ কোটি ৭২ লাখ ৮৫ হাজারের অধিক করোনায় আক্রান্ত এবং ৪ লাখ ৭১ হাজার ৪২২ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

পৃথিবীর দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারত রয়েছে করোনায় আক্রান্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় এবং মৃত্যু নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে। ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল আক্রান্ত দেশের তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকলেও সর্বাধিক মৃতের সংখ্যায় রয়েছে দ্বিতীয়তে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতে মোট আক্রান্ত ১ কোটি ৮ লাখ ৫৮ হাজার ছাড়িয়েছে এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৫৫ হাজার ২৫২ জন। ব্রাজিলে মোট শনাক্ত রোগী ৯৬ লাখ ৫৯ হাজারের বেশি এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৮৫০ জনের।

মেক্সিকো ১ লাখ ৬৯ হাজার ৭৬০ জনের মৃত্যু নিয়ে এ ক্ষেত্রে তিন নম্বরে থাকালেও রোগীর সংখ্যা নিয়ে আছে ১৩তম অবস্থানে। সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৯ লাখ ৫৮ হাজার।

রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি দেশ হলো- যুক্তরাজ্য (প্রায় ৩৯ লাখ ৯৭ হাজার), রাশিয়া (৩৯ লাখ ৬৮ হাজারের বেশি), ফ্রান্স (প্রায় ৩৪ লাখ ৪৫ হাজার) ও স্পেন (৩০ লাখ ২৩ হাজারের বেশি)।

মৃতের দিক দিয়ে বিশ্বে পঞ্চম স্থানে আছে যুক্তরাজ্য (১ লাখ ১৫ হাজার ৬৮ জন)। তারপরে ইতালিতে ৯২ হাজার ৩৩৮ জন, ফ্রান্সে ৮০ হাজার ৫৯১ জন ও রাশিয়ায় ৭৬ হাজার ৮৭৩ জন মারা গেছেন।