শাশুড়ি হত্যা মামলায় পুত্রবধূসহ শ্বাসরোধ ৪ জনের মৃত্যুদন্ড

লক্ষ্মীপুর সদরে শাশুড়ি জাকেরা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে পুত্রবধূ শারমিন আক্তারসহ ৪ জনকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. শাহেনূর এ রায় ঘোষণা করেন।
জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) মো. জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘দীর্ঘ সাক্ষ্য প্রমাণ ও তদন্তে আসামিরা দোষী সাব্যস্ত হয়েছে। রায়ের সময় আসামিরা অনুপস্থিত ছিলেন।

দ-প্রাপ্ত অন্য আসামিরা হলেন- সদর উপজেলার কালিবৃত্তি গ্রামের মৃত তরিক উল্লার ছেলে মো. জামাল, একই গ্রামের মো. নাজিম ও আন্দার মানিক গ্রামের মো. হোসেনের ছেলে জসিম উদ্দিন।

আদালত সূত্র জানায়, নিহত জাকেরা বেগম সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের প্রবাসী রুহুল আমিনের স্ত্রী। জাকেরার ছোট ছেলে আবুল বাশার ঢাকায় ইলেক্ট্রিকের কাজ করত। বাশারের অনুপস্থিতে তার স্ত্রী শারমিন আক্তার অপর আসামি জামালের সঙ্গে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে তারা শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। বিষয়টি জানতে পেরে শাশুড়ি জাকেরা পুত্রবধূকে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্কটি বিচ্ছিন্ন করতে বলে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়।

২০১৬ সালের ১৪ জুলাই মধ্যরাতে বাসার কলাপসিবল গেট খুলে শারমিন অন্যান্য আসামিদের নিজের কক্ষে নিয়ে যান। তাদের কথাবার্তা শুনে ঘুম থেকে উঠে জাকেরা শারমিনের কক্ষে গিয়ে আসামিদের দেখতে পান। এ সময় আসামিরা ক্ষিপ্ত হয়ে জাকেরাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর পালিয়ে যায়।

পরদিন নিহতের দেবর খোরশেদ আলম বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই দিনই আসামি জসিম উদ্দিনকে নতুন তেওয়ারীগঞ্জ গ্রামের শ্বশুর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আসামিরা জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছে। তথ্য:বাসস

আজকের বাজার/আখনূর রহমান